মেনু নির্বাচন করুন
  ১। জেলা কারাগার ঝিনাইদহ, জেল সুপার। ২। অফিসের কার্যক্রমের বিবরণ- ক) আদালতের নির্দেশে বন্দীদের কারাগারে নিরাপদ আটক নিশ্চিত করা। খ) আদালতে উপস্থাপন করা। গ) সাজা খাটানো। ঘ) আদালতের নির্দেশে জামিনে মুক্তি প্রদান।

সাধারণ তথ্য

১। জেলা কারাগার ঝিনাইদহ, জেল সুপার। ২। অফিসের কার্যক্রমের বিবরণ- ক) আদালতের নির্দেশে বন্দীদের কারাগারে নিরাপদ আটক নিশ্চিত করা। খ) আদালতে উপস্থাপন করা। গ) সাজা খাটানো। ঘ) আদালতের নির্দেশে জামিনে মুক্তি প্রদান।

সাংগঠনিক কাঠামো

কর্মকর্তাবৃন্দ

ছবিনামপদবিফোনমোবাইলইমেইল
মোঃ ইকবাল হোসেনজেল সুপার০৪৫১-৬২৪৩৬০১৭১১০৭১৪৫৭iqbalhossain.bangladesh@gmail.com
মোঃ মামুনুর রশিদ ডেপুটি জেলার০৪৫১-৬২৪৩৬01714973581djmamurbdj@gmail.com
মো: দিদারুল আলম জেলার ০৪৫১৬২১৭৬০১৭১৫০৪০১৯০zerithift@gmail.com
মোঃ গোলাম ছরোয়ার ফার্মাসিস্ট০৪৫১৬২১৭৬০১৭১১৩১৮৪৯০golamsoroar@gmail.com

কর্মচারীবৃন্দ

ছবিনামপদবি
মো: আব্দুল কাদের কারা সহকারী
মো: বদরুল আলম ফার্মাসিস্ট

প্রকল্পসমূহ

যোগাযোগ

জেল সুপার, জেলা কারাগার ঝিনাইদহ।

ফোন ও ফ্যাক্স নম্বর- ০৪৫১-৬২৪৩৬।

e-mail-jailsuperjhenidah@yahoo.com

কী সেবা কীভাবে পাবেন

    ঝিনাইদহ জেলা কারাগারের সিটিজেন চার্টারঃ-

১।

আদালত হতে আগত বন্দীদের জন্য ঃ-

 

(ক)প্রত্যেক দিন আদালত হতে আগত বন্দীদের শ্রেণী বিন্যাস করতঃ যথাযথ আবাসনের ব্যবস্থা করা হয়।

(খ)কোন বন্দীর হাজিরা তারিখ নিদির্ষ্ট না থাকলে আদালতের সাথে যোগাযোগ করতঃ হাজিরার তারিখ       

      সংগ্রহ পূর্বক আদালতে হাজিরার ব্যবস্থা করা হয়।

(গ)নবাগত বন্দীদের আদালত হতে আসার পর তাদের সাথে রক্ষিত টাকা পয়সা ও অন্যান্য মূল্যবান দ্রব্যাদি 

     যথাযথ হেফাজতে রাখার ব্যবস্থা করা হয়।

২।

আইনগত সহায়তা প্রদান সংক্রান্ত ঃ-

 

(ক)অসহায় অসচ্ছল বন্দীদের ন্যায় বিচার প্রাপ্তির লক্ষ্যে জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির মাধ্যমে সরকারী

      কৌশলী নিয়োগের মাধ্যমে যথাযথ আইনগত সহায়তা প্রদান করা হয়।

 

(খ)  দন্ডপ্রাপ্ত অসহায় বন্দীদের সুবিচার প্রাপ্তিতে উচ্চ আদালতে জেল আপীল দায়ের করার ব্যাপারে সহযোগিতা

      প্রদান করা হয়।

৩।

বন্দীদের সাথে দেখা- সাক্ষাত সংক্রান্ত ঃ-

 

(ক)বিধি মোতাবেক আত্মীয়-স্বজনদের সাথে বন্দীদের সাক্ষাৎ করানো হয়।

(খ)ডিটেন্যু ও নিরাপদ হেফাজতী বন্দীদের সংশ্লিষ্ট জেলা ম্যাজিস্ট্রেট/ আদালতের অনুমতি প্রাপ্তিতে

      সাক্ষাত করানো হয়।

(গ)বন্দীদের সাথে দেখা করার জন্য কোন প্রকার টাকা পয়সা লেন-দেন নিষিদ্ধ। কেউ টাকা দাবী করলে

      দায়ী ব্যাক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

(ঘ)নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বে বা পরে দূর-দুরান্ত থেকে আগত সাক্ষাত প্রার্থীদের সাথে বন্দীদের সাক্ষাতের জন্য

     সাধারনতঃ মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে অনুমতি প্রদান করা হয়।

৪।

পিসিতে টাকা জমাদান পদ্ধতি

 

কেউ কারাগারে আটক বন্দীদের পিসিতে টাকা জমা করতে চাইলে ডাকযোগে মানি অর্ডার অথবা ব্যাক্তিগত ভাবে ও পিসি তে টাকা জমা দিতে পারবেন। 

৫।

ওকালাতনামা স্বাক্ষর প্রসঙ্গেঃ-

 

ওকালাতনামা স্বাক্ষরের ব্যাপারে কারাগারের প্রধান ফটকের সামনে ওকালাতনামা দাখিলের জন্য বাক্স রাখা হয়েছে যা নির্ধারিত সময় অন্তর অন্তর খুলে ওকালাতনামা স্বাক্ষরান্তে বন্দীর কৌশলী/আত্মীয়ের নিকট হস্তান্তর করা হয়। 

৬।

জামিনে মুক্তি প্রসঙ্গেঃ

 

(ক) আদালত হতে প্রাপ্ত মুক্তি/জামিন  আদেশের মুক্তিযোগ্য বন্দীদের তালিকা প্রধান ফটকের সামনে নোটিশ বোর্ডে টাঙ্গিয়ে দেয়া হয়।

() যেসব বন্দীর মুক্তি/ জামিন আদেশ ভুল পরিলক্ষিত হয় তাদের নামের তালিকা বাইরে টাঙ্গিয়ে দেয়া হয় এবং বন্দীর আত্মীয়-স্বজনকে জানিয়ে দেয়া হয়।

৭।

বন্দীর সাথে আচরন প্রসঙ্গেঃ-

 

কারাগারে আটক বন্দীদের সাথে মানবিক আচারণ নিশ্চিত করা হয়, কারা বিধি অনুযায়ী প্রত্যেক বন্দীর খাবার, আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়। 

৮।

চিকিৎসা ব্যবস্থাঃ-

 

(ক) কারাগারে হাসপাতাল বিদ্যমান রয়েছে। অসুস্থ বন্দীদেরকে হাসপাতালে ভর্তি রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও পথ্য প্রদান করা হয়। অসুস্থ বন্দীদেরকে চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে উন্নত চিকিৎসার জন্য কারাগারের বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রদান করা হয়।

(খ)কারাভ্যন্তরে মাদক সেবী বন্দীদেরকে সাধারন বন্দীদের থেকে আলাদা করে পৃথক আবাসনের মাধ্যমে যথাযথ চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়।

৯।

প্রশিক্ষণঃ

 

কারাগারে আটক সাজাপ্রাপ্ত বন্দীদের বিভিন্ন ট্রেডে নিয়োজিত করে যুগোপযোগী প্রশিক্ষন প্রদান করতঃ দক্ষ ও প্রশিক্ষিত করে গড়ে  তোলা হয় যাতে করে বন্দী সাজা ভোগের পর মুক্ত জীবনে গিয়ে নানা রকম পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করতে পারে।

১০।

বিবিধঃ

 

(ক) কারাগারে আটক বন্দীদের স্ব-স্ব ধর্ম প্রতিপালনের স্বার্থে ধর্মীয় শিক্ষক নিয়োগসহ প্রতিপালনের জন্য

      পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা রয়েছে।

 

(খ)বন্দীদের সম্যসা গুলি মনোযোগ সহকারে শ্রবন করা হয় এবং সম্যাসাদির সমাধানের প্রয়োজনীয়

     ব্যবস্থা  গ্রহন করা হয়।

 

(গ)বন্দীদের চিত্ত বিনোদনের জন্য কারাভ্যান্তরে টিভি,রেডিও ক্যারাম ও লুডু ইত্যাদির ব্যবস্থা রয়েছে।

 

(ঘ)প্রত্যেক কারাগারে ক্যান্টিন ব্যবস্থা চালু রাখা হয়েছে যেখানে সাশ্রয়ী মুল্যে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী ও   

     দৈনন্দিন ব্যবহার্য জিনিসপত্র মজুদ রাখা হচ্ছে। বন্দীরা চাহিদানুযায়ী ক্যান্টিন হতে উক্ত মালামাল ক্রয়

     করাতে পারেন।

                   বিঃ দ্রঃ  উপরে উল্লেখিত সুযোগ সুবিধা প্রাপ্তিতে কোন অসুবিধা বা হয়রানির স্বীকার হলে নিম্নোক্ত কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষতের মাধ্যমে অথবা নিম্নোক্ত টেলিফোন/মোবাইলে জানানোর জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে।

            ক)  জেল সুপার    টেলিফোনঃ- ০৪৫১-৬২৪৩৬।

          খ)  জেলার          টেলিফোনঃ- ০৪৫১-৬২১৭৬।

প্রদেয় সেবাসমূহের তালিকা

সিটিজেন চার্টার

    ঝিনাইদহ জেলা কারাগারের সিটিজেন চার্টারঃ-

১।

আদালত হতে আগত বন্দীদের জন্য ঃ-

 

(ক)প্রত্যেক দিন আদালত হতে আগত বন্দীদের শ্রেণী বিন্যাস করতঃ যথাযথ আবাসনের ব্যবস্থা করা হয়।

(খ)কোন বন্দীর হাজিরা তারিখ নিদির্ষ্ট না থাকলে আদালতের সাথে যোগাযোগ করতঃ হাজিরার তারিখ       

      সংগ্রহ পূর্বক আদালতে হাজিরার ব্যবস্থা করা হয়।

(গ)নবাগত বন্দীদের আদালত হতে আসার পর তাদের সাথে রক্ষিত টাকা পয়সা ও অন্যান্য মূল্যবান দ্রব্যাদি 

     যথাযথ হেফাজতে রাখার ব্যবস্থা করা হয়।

২।

আইনগত সহায়তা প্রদান সংক্রান্ত ঃ-

 

(ক)অসহায় অসচ্ছল বন্দীদের ন্যায় বিচার প্রাপ্তির লক্ষ্যে জেলা লিগ্যাল এইড কমিটির মাধ্যমে সরকারী

      কৌশলী নিয়োগের মাধ্যমে যথাযথ আইনগত সহায়তা প্রদান করা হয়।

 

(খ)  দন্ডপ্রাপ্ত অসহায় বন্দীদের সুবিচার প্রাপ্তিতে উচ্চ আদালতে জেল আপীল দায়ের করার ব্যাপারে সহযোগিতা

      প্রদান করা হয়।

৩।

বন্দীদের সাথে দেখা- সাক্ষাত সংক্রান্ত ঃ-

 

(ক)বিধি মোতাবেক আত্মীয়-স্বজনদের সাথে বন্দীদের সাক্ষাৎ করানো হয়।

(খ)ডিটেন্যু ও নিরাপদ হেফাজতী বন্দীদের সংশ্লিষ্ট জেলা ম্যাজিস্ট্রেট/ আদালতের অনুমতি প্রাপ্তিতে

      সাক্ষাত করানো হয়।

(গ)বন্দীদের সাথে দেখা করার জন্য কোন প্রকার টাকা পয়সা লেন-দেন নিষিদ্ধ। কেউ টাকা দাবী করলে

      দায়ী ব্যাক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

(ঘ)নির্দিষ্ট সময়ের পূর্বে বা পরে দূর-দুরান্ত থেকে আগত সাক্ষাত প্রার্থীদের সাথে বন্দীদের সাক্ষাতের জন্য

     সাধারনতঃ মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে অনুমতি প্রদান করা হয়।

৪।

পিসিতে টাকা জমাদান পদ্ধতি

 

কেউ কারাগারে আটক বন্দীদের পিসিতে টাকা জমা করতে চাইলে ডাকযোগে মানি অর্ডার অথবা ব্যাক্তিগত ভাবে ও পিসি তে টাকা জমা দিতে পারবেন। 

৫।

ওকালাতনামা স্বাক্ষর প্রসঙ্গেঃ-

 

ওকালাতনামা স্বাক্ষরের ব্যাপারে কারাগারের প্রধান ফটকের সামনে ওকালাতনামা দাখিলের জন্য বাক্স রাখা হয়েছে যা নির্ধারিত সময় অন্তর অন্তর খুলে ওকালাতনামা স্বাক্ষরান্তে বন্দীর কৌশলী/আত্মীয়ের নিকট হস্তান্তর করা হয়। 

৬।

জামিনে মুক্তি প্রসঙ্গেঃ

 

(ক) আদালত হতে প্রাপ্ত মুক্তি/জামিন  আদেশের মুক্তিযোগ্য বন্দীদের তালিকা প্রধান ফটকের সামনে নোটিশ বোর্ডে টাঙ্গিয়ে দেয়া হয়।

() যেসব বন্দীর মুক্তি/ জামিন আদেশ ভুল পরিলক্ষিত হয় তাদের নামের তালিকা বাইরে টাঙ্গিয়ে দেয়া হয় এবং বন্দীর আত্মীয়-স্বজনকে জানিয়ে দেয়া হয়।

৭।

বন্দীর সাথে আচরন প্রসঙ্গেঃ-

 

কারাগারে আটক বন্দীদের সাথে মানবিক আচারণ নিশ্চিত করা হয়, কারা বিধি অনুযায়ী প্রত্যেক বন্দীর খাবার, আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়। 

৮।

চিকিৎসা ব্যবস্থাঃ-

 

(ক) কারাগারে হাসপাতাল বিদ্যমান রয়েছে। অসুস্থ বন্দীদেরকে হাসপাতালে ভর্তি রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও পথ্য প্রদান করা হয়। অসুস্থ বন্দীদেরকে চিকিৎসকের পরামর্শক্রমে উন্নত চিকিৎসার জন্য কারাগারের বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রেখে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা প্রদান করা হয়।

(খ)কারাভ্যন্তরে মাদক সেবী বন্দীদেরকে সাধারন বন্দীদের থেকে আলাদা করে পৃথক আবাসনের মাধ্যমে যথাযথ চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়।

৯।

প্রশিক্ষণঃ

 

কারাগারে আটক সাজাপ্রাপ্ত বন্দীদের বিভিন্ন ট্রেডে নিয়োজিত করে যুগোপযোগী প্রশিক্ষন প্রদান করতঃ দক্ষ ও প্রশিক্ষিত করে গড়ে  তোলা হয় যাতে করে বন্দী সাজা ভোগের পর মুক্ত জীবনে গিয়ে নানা রকম পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করতে পারে।

 

১০।

বিবিধঃ

 

(ক) কারাগারে আটক বন্দীদের স্ব-স্ব ধর্ম প্রতিপালনের স্বার্থে ধর্মীয় শিক্ষক নিয়োগসহ প্রতিপালনের জন্য

      পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা রয়েছে।

 

(খ)বন্দীদের সম্যসা গুলি মনোযোগ সহকারে শ্রবন করা হয় এবং সম্যাসাদির সমাধানের প্রয়োজনীয়

     ব্যবস্থা  গ্রহন করা হয়।

 

(গ)বন্দীদের চিত্ত বিনোদনের জন্য কারাভ্যান্তরে টিভি,রেডিও ক্যারাম ও লুডু ইত্যাদির ব্যবস্থা রয়েছে।

 

(ঘ)প্রত্যেক কারাগারে ক্যান্টিন ব্যবস্থা চালু রাখা হয়েছে যেখানে সাশ্রয়ী মুল্যে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী ও   

     দৈনন্দিন ব্যবহার্য জিনিসপত্র মজুদ রাখা হচ্ছে। বন্দীরা চাহিদানুযায়ী ক্যান্টিন হতে উক্ত মালামাল ক্রয়

     করাতে পারেন।

                   বিঃ দ্রঃ  উপরে উল্লেখিত সুযোগ সুবিধা প্রাপ্তিতে কোন অসুবিধা বা হয়রানির স্বীকার হলে নিম্নোক্ত কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষতের মাধ্যমে অথবা নিম্নোক্ত টেলিফোন/মোবাইলে জানানোর জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে।

            ক)  জেল সুপার    টেলিফোনঃ- ০৪৫১-৬২৪৩৬।

 

          খ)  জেলার          টেলিফোনঃ- ০৪৫১-৬২১৭৬।

তথ্য অধিকার

বিজ্ঞপ্তি

ডাউনলোড

আইন ও সার্কুলার